স্কুল না খোলা পর্যন্ত সবকিছু ডিজিটাল পদ্ধতিতেই করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

স্কুল না খোলা পর্যন্ত সবকিছু অনলাইনের মাধ্যমেই চলবে এমনটাই জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বিনামুল্লে বই বিতরন এর উদ্বোধন কালে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।এসময় তিনি সকলকে স্যাস্থবিধি মেনে চলার আহবান জানান।করোনাকালীন সময়ে যেন শিশুদের মানুষিক বিকাশে কোন ব্যাঘাত না ঘটে এর জন্য তিনি শিশুদের পাঠ্য পুস্তুক এর পাশাপাশি অন্যান্য বই পড়া,খেলা ধুলা এবং সংস্কৃতি চর্চা চালু রাখার জন্য অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান।

প্রধানমন্ত্রী গত বৃহস্পতিবার গনভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে বিনামূলে বই বিতরন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন এর সময় এই কথা গুলো বলেন।এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,আমি মনে করি অনলাইনের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।তিনি আরও বলেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনলাইন ব্যাবহার করে রেকর্ড করা ক্লাস এর ভিডিও আপলোড করছে আর আমাদের শিক্ষার্থীরা সেসব ভিডিও ঘরে বসে দেখতে পারছে।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন,তাঁদের সরকার যখনই স্কুল খোলার কথা চিন্তা করল সেই সময়ই করোনা ভাইরাসে দ্বিতীয় ধাক্কা আসল আর সেই কারনেই আমরা আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।এর ভেতর যদি করোনা পরিস্থিথি স্বাভাবিক হয় তাহলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো খুলে দেওয়া হবে আর স্বাভাবিক না হলে খোলা হবে না।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মিলনায়তনে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন।১ লা জানুয়ারি থেকে সাড়াদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে বই বিতরন কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে এবং পর্যায়ক্রমে তিন দিন করে সর্বমোট ১২ দিনে বই বিতরন শেষ করা হবে।

করোনা ভাইরাসে কারনে এবার অন্যান্য বছরের মত বই বিতরন উৎসব না হলেও বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীরা নতুন বই হাতে পাবে।এবছর মত ৩৫ কোটি কপি নতুন বই ছাপা হয়েছে।

বই বিতরন এর উদ্বোধন এর সময় প্রধানমন্ত্রী শিশুদের মানুষিক বিকাশ এর উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।তিনি শিক্ষার্থীদের বলেন শুধু পাঠ্য পুস্তুক নয় পাশাপাশি অন্যান্য বইও পড়তে হবে এবং খেলাধুলা করতে হবে।এসময় তিনি অভিভাবকদের বলেন আপনারা আপনাদের সন্তানদের সময় দিবেন।করনাভাইরাসের কারনে আপনারা যেমন মানুষিক চাপে রয়েছেন আপনাদের সন্তানরাও চাপে রয়েছে।আর যেহেতু আপনারা ঘরে আছেন এই সময়ের সদব্যাবহার করবেন।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *